শুক্রবার, ১৪ মে ২০২১, ০৪:৪৯ পূর্বাহ্ন
Logo
শিরোনাম :
ইফজাল চৌধুরী এডুকেশন ট্রাস্টের পক্ষ থেকে সবাইকে ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা। দেশ বিদেশে সবাইকে ঈদ-উল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বাছিত তালুকদার ঈদুল ফিতর উপলক্ষে জকিগঞ্জবাসী সহ সবাইকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন- নাজনীন সুলতানা জকিগঞ্জ উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানের ঈদ শুভেচ্ছা স্ত্রী’কে খুন করাতে তিন লাখ টাকা ঢালেন এসপি বাবুল, কেনো স্ত্রী’কে খুন? ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন জকিগঞ্জ থানার ওসি মোঃ আব্দুল কাশেম মাদারীপুর বাংলাবাজারে ফেরি থেকে নামতে গিয়ে নিহত ৫ মণিরামপুরের রোহিতা ইউনিয়নে আ.লীগ নেতা নগদ অর্থসহ ঈদ সামগ্রী বিতরণ টেকনাফে কোস্ট গার্ডের অভিযানে ২৮ হাজার পিস ইয়াবাসহ ০৪ ইয়াবা পাচারকারী আটক; নৌকা জব্দ মধ্যপ্রাচ্য, ইউরোপ ও উত্তর আমেরিকায় ঈদ হবে বৃহস্পতিবার
নোটিস :
আমাদের সাইট-এ প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে,যোগাযোগ করুন>> 01712-129297>>>01712-613199>>>01926-659742>>>

ধর্ষকের কাছ থেকে ৩৫ লাখ টাকা ঘুষ, নারী পুলিশ কর্মকর্তা গ্রেফতার

অনলাইন ডেস্ক: / ১৫৩ বার
আপডেটে : সোমবার, ৬ জুলাই, ২০২০

অনলাইন ডেস্ক: নারী পুলিশ গ্রেফতার অভিযুক্ত ধর্ষকদের বাঁচাতে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগে পুলিশের নারী সাব-ইন্সপেক্টরকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। জানা গেছে, ভারতের গুজরাটের আহমেদাবাদ পশ্চিম মহিলা থানার ইনচার্জ শ্বেতা জাদেজার বিরুদ্ধে অভিযোগটি উঠেছে। প্রথম দফায় ২০ লাখ টাকা ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ রয়েছে শ্বেতা জাদেজার বিরুদ্ধে। তদন্তের রিপোর্ট বদল করতে আরো ১৫ লাখ টাকা আদায় করতে অভিযুক্তদের সঙ্গে নাকি দর কষাকষি চলছিল শ্বেতার। পুরো ব্যাপারটি ফাঁস হয়ে যায়। পরে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে পুলিশের ওই কর্মকর্তার বিরুদ্ধেও।

এ ব্যাপারে শুরু হয়েছে তদন্ত। আহমেদাবাদের একটি বেসরকারি সংস্থার প্রধানের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ করা হয়েছিল ২০১৯ সালে। অভিযুক্তের নাম কেনাল শাহ। অফিসেরই দুই মনারী কর্মচারীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছিল তার বিরুদ্ধে। দুই ভুক্তভোগীর পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা দায়ের করা হয়েছিল। ধর্ষণের দুটি মামলা দায়ের করা হয়েছিল কেনালের বিরুদ্ধে। একটি মামলার তদন্তের দায়িত্বে ছিলেন শ্বেতা জাদেজা।

একজন ভুক্তভোগীর অভিযোগ, তদন্ত কোনোভাবেই গতি পায়নি। এমনকি অপরাধীর বিরুদ্ধে কোনো শাস্তিমূলক ব্যবস্থাও নেওয়া হয়নি। অভিযুক্তের বিরুদ্ধে এর আগেও নারীদের সঙ্গে অশালীন আচরণের অভিযোগ রয়েছে। জানা গেছে, কেনাল শাহের ভাই ভবেশের কাছ থেকে ৩৫ লাখ টাকা ঘুষ চাওয়ার অভিযোগ রয়েছে শ্বেতার বিরুদ্ধে। যদিও এই অভিযোগ তিনি অস্বীকার করেছেন।

শ্বেতার বিরুদ্ধে অভিযোগে বলা হয়েছে, গত বছর কেনাল শাহের বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা দায়ের করা হলেও তদন্তের কোনো রিপোর্টই দেননি শ্বেতা। কেনালের ভাইয়ের মাধ্যমে তার কাছে অগ্রিম ২০ লাখ টাকা পৌঁছে গিয়েছিল বলেও অভিযোগ রয়েছে। সেই টাকা এসেছিল অন্য একজনের সূত্র ধরে। অভিযুক্তদের পরিবারের সঙ্গে নাকি নিয়মিত যোগাযোগও ছিল শ্বেতার। টাকাপয়সা লেনদেনের ব্যাপারে গোপন আলোচনাও চলার অভিযোগ রয়েছে। আরো ১৫ লাখ টাকার জন্য নাকি অভিযুক্তকে চাপ দিচ্ছিলেন শ্বেতা।

এনিয়ে অভিযুক্তের পরিবারের সঙ্গে দর কষাকষিও চলছিল তার। সে কারণে পুরো ব্যাপারটি সামনে চলে আসে। তবে সেই টাকা শ্বেতার হাতে পৌঁছেছিল কিনা, তা এখনো জানা যায়নি। গত শুক্রবার গ্রেপ্তার করা হয় শ্বেতাকে। শনিবার তাকে দায়রা আদালতে তোলা হলে বিচারক সাতদিন পুলিশি হেফাজতে রাখার নির্দেশ দেন। পুলিশ জানিয়েছে, শ্বেতাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। ঘুষ নেওয়ার ব্যাপারে তিনি মুখ খোলেননি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ
Theme Created By ThemesDealer.Com