বৃহস্পতিবার, ১৩ মে ২০২১, ০৫:৩৮ পূর্বাহ্ন
Logo
নোটিস :
আমাদের সাইট-এ প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে,যোগাযোগ করুন>> 01712-129297>>>01712-613199>>>01926-659742>>>

লালপুরে আ.লীগের পাল্টাপাল্টি সম্মেলনস্থলে ১৪৪ ধারা জারি

নাটোর প্রতিনিধি: / ১৬৬ বার
আপডেটে : মঙ্গলবার, ২২ ডিসেম্বর, ২০২০

নাটোর প্রতিনিধি:
নাটোরের লালপুরে একই স্থানে দুড়দুড়িয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও ওই ইউনিয়নের অন্য তিনটি ওয়ার্ড আ.লীগের নেতাকর্মীরা পাল্টাপাল্টি সম্মেলন ঘোষণা করায় সংঘর্ষ এড়াতে ১৪৪ ধারা জারি করেছে উপজেলা প্রশাসন।

বুধবার(২৩ ডিসেম্বর) সকাল ১০টায় স্থানীয় রামপাড়া স্কুল অ্যান্ড কলেজে মাঠে নাটোর-১ (লালপুর-বাগাতিপাড়া) আসনের সাবেক সংসদ সদস্য আবুল কালাম আজাদ ও বর্তমান সংসদ সদস্য শহিদুল ইসলাম বকুলের সমর্থকরা এ পাল্টাপাল্টি সম্মেলনের আয়োজন করেন।
ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি নায়েব উদ্দীন মালিথা সংসদ শহিদুল ইসলাম বকুলের পক্ষে ও সাধারণ সম্পাদক ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হান্নান সাবেক সংসদ আবুল কালামের পক্ষে সম্মেলন আহ্বান করেন।

মঙ্গলবার (২২ ডিসেম্বর) রাত ৮টায় মাইকিং করে সম্মেলন স্থল রামপাড়া স্কুল অ্যান্ড কলেজে মাঠ ও আশেপাশের এলাকাসহ সমগ্র ইউনিয়নে ১৪৪ ধারা জারির বিষয়টি সাধারণ জনগণকে অবহিত করে প্রশাসন।
জানা যায়, ২৩ ডিসেম্বর বুধবার রামপাড়া স্কুল অ্যান্ড কলেজ মাঠে সাবেক ও বর্তমান সংসদের অনুসারীরা একই সময়ে ইউনিয়ন এবং ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডের সম্মেলন আহ্বান করে। এতে করে লালপুর উপজেলার দুড়দুড়িয়া ইউনিয়নের সাধারণ মানুষ ও আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে আতঙ্ক ও উত্তেজনা বিরাজ করে।

আরো পড়ুন: সিলেটে সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহার না করলে আন্দোলন

মঙ্গলবার দুপুরে সেখানে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় অংশ নেন উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আফতাব হোসেন ঝুলফু ও সম্পাদক উপজেলা চেয়ারম্যান ইসহাক আলী। ওই সভা শেষ হলে সম্মেলন স্থলের আশেপাশে প্রতিপক্ষের অনুসারীরা অবস্থান নিতে শুরু করে। যে কোন অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে লালপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উম্মুল বানীন দ্যূতি বুধবার সকাল থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত সমগ্র ইউনিয়নে ১৪৪ ধারা জারি করেন।
লালপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উম্মুল বানীন দ্যূতি জানান, যে কোন সাংঘর্ষিক পরিস্থিতি এড়াতে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। দুই পক্ষকেই নজরদারির মধ্যে রাখা হয়েছে।
লালপুর থানার অফিসার ইনচার্জ সেলিম রেজাও একই কথা জানান।
এদিকে সম্মেলন আহ্বান নিয়ে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ করেছে বর্তমান ও সাবেক সংসদ গ্রুপ।
লালপুর উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান ইসাহাক আলী বলেন, সংসদ শহিদুল ইসলাম বকুল আমাদের পূর্বনির্ধারিত ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলন পণ্ড করতে প্রশাসনকে প্রভাবিত করেছে। তার অনুসারীরা আমাদের পরে সম্মেলন আহ্বান করেছে। একই স্থানে সম্মেলন আহ্বান করায় প্রশাসন ১৪৪ ধারা জারি করেছে। আমাদের এ শান্তিপূর্ণ সম্মেলন পণ্ড করায় তীব্র নিন্দা জানাই।
সংসদ শহিদুল ইসলাম বকুল বলেন, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন বারবার আমাদের নির্দেশনা দিয়েছেন আগে ওয়ার্ড সম্মেলন শেষ করে ইউনিয়ন সম্মেলন করতে। কিন্ত উপজেলা আওয়ামী লীগ সেই নির্দেশ অমান্য করে ওয়ার্ড সম্মেলন না করে ইউনিয়ন সম্মেলন আহ্বান করেছে। কেন্দ্রীয় নির্দেশনা মোতাবেক ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সম্মেলন আয়োজন করে সেখানে সাবেক সংসদ আবুল কালাম আজাদ ও আমাকে থাকতে বলা হয়েছিলো। উপজেলা আওয়ামী লীগ আমাকে সম্মেলনের ব্যাপারে অবহিতও করেনি এবং নির্দেশনাও অমান্য করেছে। কেন্দ্রীয় নির্দেশনার বাইরে গিয়ে গঠনতন্ত্র বিরোধী সম্মেলন অংশ নিতে পারবো না। তাই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতির নেতৃত্বে ওয়ার্ড সম্মেলন আহ্বান করা হয়েছে বলে জেনেছি এবং এটিই যৌক্তিক।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ
Theme Created By ThemesDealer.Com