শুক্রবার, ২২ জানুয়ারী ২০২১, ১০:০৩ পূর্বাহ্ন
Logo
শিরোনাম :
নৌকা মার্কা ছাড়া নন্দীগ্রামে মানুষের উন্নয়ন সম্ভব নয় মুসলিম দেশগুলোর ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিলেন নতুন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বাংলাদেশের কাছে করোনার টিকা হস্তান্তর করলো ভারত নন্দীগ্রাম পৌরসভা নির্বাচনে যে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা প্রশাসন কঠোর হস্তে দমন করবে জকিগঞ্জ থানার ওসির দাবী ‘বিচারককে উৎকোচ দেয়ার জন্য ক্লোজ হননি এসআই মোঃ রাজা মিয়া সিলেটে হোটেলে অসামাজিক কার্যকলাপ, আটক ১২ শপথ নেওয়ার আগে গির্জায় সস্ত্রীক জো বাইডেন প্রেমের বিয়ের একদিন পরেই আত্মহত্যা কলেজ ছাত্রীর প্রযোজনায় নাম লেখালেন তমা, জুটি বাঁধলেন তৌকীরের সঙ্গে ম্যাজিস্ট্রেটের সঙ্গে দুর্ব্যবহার, কুষ্টিয়ার এসপিকে হাইকোর্টে তলব
নোটিস :
আমাদের সাইট-এ প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে,যোগাযোগ করুন>> 01712-129297>>>01712-613199>>>01926-659742>>>

চলে গেলেন শায়খে গলমুকাপনী হুজুর

নিজস্ব প্রতিবেদক: / ১১২ বার
আপডেটে : বৃহস্পতিবার, ২৫ জুন, ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক: সিলেটের বরেণ্য আলেমে দ্বিন ও প্রখ্যাত বুযুর্গ শায়খুল হাদিস আব্দুস শহীদ গলমুকাপনী আর নেই।

তিনি বুধবার দিবাগত রাত (২৫ জুন) আড়াইটার দিকে সিলেট নগরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন। মরহুমের ছেলে সিলেট নগরের নয়াসড়ক জামে মসজিদের ইমাম হাফিজ মাওলানা মোহাম্মদ হোসাইন মৃত্যুর সংবাদটি নিশ্চিত করেছেন। আজ বুধবার বাদ জোহর মরহুমের নামাজে জানাজা সিলেটের ওসমানীনগর উপজেলার গলমুকাপন মাদরাসা মাঠে অনুষ্ঠিত হবে।

শায়খ আব্দুস শহীদ গলমুকাপনী দীর্ঘ কয়েক মাস ধরে নানা রোগে ভুগছিলেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিলো ৮০ বছর। ৪ ছেলে ও ৬ মেয়েসহ হাজার হাজার ছাত্র, ভক্ত এবং মুরিদান রেখে গেছেন তিনি।

শায়খ আব্দুস শহীদ ১৯৪১ সালে সিলেটের ওসমানীনগর উপজেলার গলমুকাপন গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি প্রথমে গলমুকাপন মাদরাসায় ভর্তি হন। পরে জামেয়া হোসাইনিয়া গহরপুর থেকে দাওরায়ে হাদিস পাস করেন।

শায়খ আব্দুস শহীদ সিলেটের ঐতিহ্যবাহী জামেয়া দারুস সুন্নাহ গলমুকাপনের মুহতামিম ও শায়খুল হাদিস ছিলেন। ছিলেন জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় সহসভাপতি। ১৯৯৬ সালে সিলেট-২ আসন থেকে জমিয়তের প্রার্থী হিসেবে খেজুর গাছ প্রতীক নিয়ে নির্বাচনও করেছিলেন।

প্রখ্যাত আলেম শায়খ লুৎফুর রহমান বর্নভী রাহ.-এর খলিফা ও বেয়াই ছিলেন তিনি। এছাড়া শায়খ আব্দুল করীম কৌড়িয়া রাহ. ও শায়খ তাফাজ্জুল হক হবিগঞ্জী রাহ.-এরও বেয়াই ছিলেন শায়খ আব্দুস শহীদ।

১৩৮৪ হিজরি সন থেকে তিনি মৃত্যু পর্যন্ত গলমুকাপন মাদরাসায় শিক্ষকতার মহান পেশায় যুক্ত ছিলেন। তার চাচা মাওলানা ফখরুদ্দীন (র) এর ইন্তেকালের পর থেকে তিনি ওই মাদরাসার মুহতামিমের দায়িত্বপ্রাপ্ত হন। সহজ-সরল দুনিয়াবিমুখ ছিলেন শায়খ আব্দুস শহীদ। জীবনভর বিতর্কের উর্ধ্বে উঠে ইসলামের খেদমত করে গেছেন তিনি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ
Theme Created By ThemesDealer.Com