মঙ্গলবার, ০৯ মার্চ ২০২১, ০৫:৪৩ অপরাহ্ন
Logo
শিরোনাম :
আমি ছাগল চুরির ঘটনায় জড়িতনা, সংবাদ সম্মেলনে ছাত্রলীগ নেতা তুহিন দর্জি চলচিত্র অঙ্গনে ১৯৪৬ সালের রঙ্গিন মুখ শাহীন আলম আর নেই মুজিববর্ষ সেরা কন্ঠ, নওগাঁ বাছাই প্রতিযোগিতা-২০২০” এর গ্র্যান্ড ফিনাল আশফির জয় জকিগঞ্জে ভূমি ব্যবস্থাপনা ই-নামজারি বিষয়ক কর্মশালা সিলেটে বর্ণাঢ্য আয়োজনে লন্ডনের অনলাইন পত্রিকা জিবি নিউজ ২৪ এর ৮ম বর্ষপূর্তি উদযাপন সম্পন্ন ময়মনসিংহের ত্রিশালে পৌর মেয়র হ্যাটট্রিক জয় আনিসের গণ সংবর্ধনা বিদীর্ণ সত্ত্বা – সুলেখা আক্তার শান্তা সেন্টমার্টিনে কোস্ট গার্ড এর অভিযানে ইয়াবা ও কাঠের নৌকাসহ ০৫ মাদক পাচারকারী আটক ময়মনসিংহের ত্রিশালে জাতীয় নারী দিবস পালিত ময়মনসিংহের ত্রিশালে ৭ই মার্চ উপলক্ষে পুলিশের আনন্দ উদযাপন
নোটিস :
আমাদের সাইট-এ প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে,যোগাযোগ করুন>> 01712-129297>>>01712-613199>>>01926-659742>>>

মাদারীপুরের পুরান বাজার থেকে বিরল প্রজাতির একটি শকুন উদ্ধার

আরিফুর রহমানঃ / ৬০ বার
আপডেটে : সোমবার, ৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

আরিফুর রহমান,মাদারীপুরঃ মাদারীপুরে বিরলপ্রজাতির একটি শকুন উদ্ধার করেছে বন বিভাগ। আজ সোমবার বিকেলে শহরের পুরার বাজার এলাকার একটি মাংসের দোকান থেকে শকুনটি জীবিত উদ্ধার করা হয়। বিরল প্রজাতির এই পুরুষ শকুনটির ওজন প্রায় ১২ কেজি বলে জানিয়েছেন বন বিভাগের কর্মকর্তারা।

বন বিভাগ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, শহরের পুরান বাজার এলাকার কাঁচাবাজারের এক মাংসের দোকানে খাঁচার ভেতরে বন্দী অবস্থায় শকুনটি ছিল। শকুনটি তিনি বিক্রি করার জন্য বিভিন্ন লোকের সঙ্গে দর-দামও করছিলেন। স্থানীয় লোকজনের মাধ্যমে বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে বন বিভাগের কাছে খবর আসে, একটি শকুন খাঁচায় বন্দী অবস্থায় আছে। পরে জেলার বন বিভাগের সদস্যরা ওই কাঁচাবাজারে গিয়ে শকুনটি জীবিত উদ্ধার করেন।

স্থানীয় আবদুল হক নামের এক কলেজছাত্র বলেন, শকুনটি প্রায়ই শহরের কবুতর পালনকারীর কবুতর খেয়ে ফেলত। পরে বিরক্ত হয়ে এক কবুতর পালনকারী কৌশলে শকুনটিকে খাঁচায় বন্দী করে। পরে ওই কবুতর পালনকারী পুরান বাজার এলাকার কাঁচাবাজারে এক মাংস বিক্রির দোকানে শকুনটি রাখে বিক্রির উদ্দেশ্যে। পরে পুলিশ ও বন বিভাগের সদস্যদের দেখে তিনি সরে পড়েন।

শকুনটিকে আপাতত চরমুগরিয়া ইকোপার্কে বানরের খাঁচায় বন্দী রাখা হবে। পরবর্তীতে খুলনা বন বিভাগের সদস্যরা শকুনটি নিয়ে যাবেন।

জেলার ভারপ্রাপ্ত বন কর্মকর্তা তাপস কুমার সেনগুপ্ত বলেন, উদ্ধার হওয়া শকুনটির বিষয়ে জেলা প্রশাসক ও খুলনা বন বিভাগকে জানানো হয়েছে। ইতিমধ্যে শকুনটিকে হস্তান্তরের জন্য খুলনা থেকে একটি দল মাদারীপুরের উদ্দেশে রওনা হয়েছে। তবে তাদের পৌঁছাতে রাত হয়ে যাবে। তাই শকুনটিকে আপাতত চরমুগরিয়া ইকোপার্কে বানরের খাঁচায় বন্দী রাখা হবে। পরবর্তী সময়ে খুলনা বন বিভাগের সদস্যরা শকুনটি নিয়ে যাবেন।

তাপস কুমার বলেন, শকুনটি পুরোপুরি সুস্থ আছে। ডানা মেলে উড়তেও পারবে শকুনটি। প্রাণিসম্পদ বিভাগের চিকিৎসকের মাধ্যমে শকুনটির স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়েছে।

সরকারি মাদারীপুর কলেজের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক সাইদুর রহমান বলেন, বাংলাদেশে তিন প্রজাতির শকুন স্থায়ীভাবে বসবাস করত। এর মধ্যে রাজশকুন বিলুপ্ত হয়ে গেছে। বর্তমানে কিছু দেশি শকুন টিকে আছে। এই দেশি শকুনকে আবার বাংলা শকুনও বলে। এটি দক্ষিণ এশিয়ার এনডেমিক পাখি। বাংলা শকুন বর্জ্যভুক হিসেবে ‘প্রাকৃতিক পরিষ্কারক’ হিসেবে পরিচিত। এর বৈজ্ঞানিক নাম Gyps bengalensis। ১৯৯০ সাল থেকে ভারতীয় উপমহাদেশে বাংলা শকুনসহ অন্যান্য শকুনের সংখ্যা আশঙ্কাজনক হারে কমছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ
Theme Created By ThemesDealer.Com