শনিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ১০:১৬ পূর্বাহ্ন
Logo
শিরোনাম :
আদমদীঘিতে সুইট লাইফ কফি হাউজে র‌্যাবের অভিযানে পাঁচ জুয়াড়ি গ্রেফতার। মাদারীপুর পরীক্ষার দাবিতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ মানববন্ধন দেশে অবহেলিত আলীয়া মাদ্রাসা —মহাসচিব শাব্বীর আহমেদ নন্দীগ্রামে পৌরসভার মেয়র ও কাউন্সিলরদের দায়িত্ব গ্রহণ জকিগঞ্জে একটি রাস্তার জন্য চরম দুর্ভোগে স্থানীয়রা – অবশেষে স্বেচ্ছাশ্রমে মাটি কাজ সম্পন্ন রুদ্ধ কপাট – সুলেখা আক্তার শান্তা জকিগঞ্জে ঘর পুড়ে ছাই, খোলা আকাশের নিচে এক পরিবার! বিউটিশিয়ানকে দিয়ে দেহব্যবসা, নারী কাউন্সিলর গ্রেপ্তার শপথ নিলেন জকিগঞ্জ পৌরসভার নব নির্বাচিত মেয়র – আব্দুল আহাদ বেশি সুদের আশায় পারিবারিক সঞ্চয়পত্রের বিক্রি বেড়েছে
নোটিস :
আমাদের সাইট-এ প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে,যোগাযোগ করুন>> 01712-129297>>>01712-613199>>>01926-659742>>>

সালথায় মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী ভাইকে জমি লিখে দিয়ে বিপাকে

সালথা উপজেলা প্রতিনিধিঃ / ৪২ বার
আপডেটে : রবিবার, ৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

মোঃ পারভেজ মিয়াঃ ফরিদপুরের সালথা উপজেলার ভাওয়াল ইউনিয়নের তুগোলদিয়া গ্রামের মৃত বীর মুক্তিযোদ্ধা চাঁন মিয়ার স্ত্রী কোহিনুর বেগম (৬০) সহদর ভাইকে জমি লিখে দেওয়ায় বিপাকে পড়েছেন এবং নিজের জীবনের নিরাপত্তারও দাবি জানিয়েছেন তিনি।
ঘটনা প্রকাশে জানা গেছে, কোহিনুর বেগমের স্বামী, বীর মুক্তিযোদ্ধা চাঁন মিয়া ১২ বছর আগে নিঃসস্তান অবস্থায় মারা যায়। স্বামী মারা যাওয়ার পর থেকে নিজের বাড়িতে স্বাভাবিক ভাবে জীবন যাপন করে আসছিলেন তিনি। সরকার কতৃক বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানী ভাতার টাকা দিয়েই চলছিল বিধবা কোহিনুর বেগমের জীবন। তবে হঠাৎ করে নিজের নামের সম্পদ নিয়ে পড়েছেন বিপাকে। কোহিনুর বেগম নিঃসন্তান হওয়ায় ভাই ও ভাইদের ছেলে মেয়েদের মধ্যে সম্পত্তি নিয়ে ঘটছে নানান ঘটনা এমনকি রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের মতো ঘটনাও।

স্থানীয়রা জানান, বীর মুক্তিযোদ্ধা চাঁন মিয়া মারা যাওয়ার পর ১০ থেকে ১২ বিঘা জমি ছিলো কোহিনুর বেগমের ঘটনাক্রমে বিক্রি করেছেন নিজেই দুইবার হজ্জ ও করেছেন তিনি। কোহিনুর বেগমের চার ভাই, এক বোন, তিন ভাই মারা গেছেন, বেঁচে আছে ছোট ভাই কুদ্দুস মাতুব্বর, সব সম্পদ বিক্রি শেষে আড়াই বিঘা জমি ছিল তার।

তা ছোট ভাই কুদ্দুস মাতুব্বরকে আদর ভালোবাসায় মুগ্ধ হয়ে লিখে দেন গত ১৫ দিন আগে। জমি লিখে দেওয়ার পরে বাদে যত ঝামেলা। অন্য ভাইদের ছেলেরা তা মানতে নারাজ তাদের দাবি আমরা ও হকদার, দাবিদার বটে। একা চাচাকে কেন লিখে দিবে, আমরাও তাকে ভরন পোষন দিয়েছি। আর চাচা কুদ্দুস মাতুব্বর কেন একা জমি লিখে নিলো? তা মানতে নারাজ অন্য ভাইয়ের ছেলে মেয়েরা। এ ঘটনা নিয়ে গত (৬ ফেব্রæয়ারী) শনিবার কুদ্দুস মাতুব্বর তুগোলদিয়া বাজারে গেলে অন্য ভাইদের ছেলেরা তাকে মারধর করে। আর জমি ফেরৎ দিতে বলে। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে উভয়ের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ বাধে এতে কুদ্দুস মাতুব্বরসহ উভয় পক্ষের ভাতিজা আতিক মাতুব্বর, কোহিনুর বেগম, মুন্নু মাতুব্বরসহ ৪/৫ জন জখম প্রাপ্ত হয়। জখমীদের ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়।

কোহিনুর বেগম জানান, আমার সম্পত্তি আমি খুশি হয়ে এক মাত্র ছোট ভাই কুদ্দুসকে লিখে দিয়েছি ও আমাকে ভালোবাসে ওর ছেলে মেয়েরা আমার দেখাশুনা করে। আমি ওর ঘরেই থাকতে চাই। আমার মনে হয়েছে ও ঘরে আমি ভালো থাকতে পারবো তাই ওকে জমি দিয়েছি। জমি লিখে দিলাম কেন? আমার অন্য ভাইয়ের ছেলেরা আমাকে বিভিন্ন সময় হুমকি দেয় মারতে আসে আমার ছোট ভাই কুদ্দুসকে মারার জন্য ঘুরে বেড়ায়। আমি আমার জীবনের নিরাপত্তা চাই।

তবে এঘটনা অস্বিকার করে অভিযুক্ত এক ভাতিজা চুন্নু মাতুব্বর বলেন, আমার ফুফু তার জমি লিখে দিবে আমার চাচাকে আমাদের আপত্তি নাই। তবে ফুফু আমাদের কাছে জমি বিক্রি করবে বলে দশ লক্ষ টাকা নিয়েছে। আমাদের জমি তো দেয় নাই আবার টাকাও ফেরৎ দেয় নাই তাই এই ঝামেলা। তাছাড়া আমার ফুফুকে আমরা মারধর করি নাই।
সালথা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুব্রত গোলদার বলেন, এখন পর্যন্ত লিখিত কোন অভিযোগ পাইনি, এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ পেলে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ
Theme Created By ThemesDealer.Com